• Wednesday, July 8, 2020

China exit: Japanese firms keen on moving to BD

Discussion in 'Bangladesh Defence Forum' started by Black_cats, May 23, 2020.

  1. Black_cats

    Black_cats SENIOR MEMBER

    Messages:
    5,651
    Joined:
    Dec 31, 2010
    Ratings:
    +0 / 8,198 / -5
    China exit: Japanese firms keen on moving to BD
    FE ONLINE REPORT | Published: May 23, 2020 12:16:12 | Updated: May 23, 2020 12:21:26

    [​IMG]Bangladesh and Japan flags are seen cross-pinned in the image, symbolising friendship between the two nations. — Collected Photo

    At least 34 Japanese companies operating in China have shown interest to relocate their units to Bangladesh.

    The embassy of Bangladesh in Beijing informed the development to the ministry of foreign affairs on Wednesday.

    Dozens of Japanese firms have planned to leave China on the grounds of trade war between the USA and China and the supply chain disruptions.


    Quoting JETRO officials in Beijing, the embassy said the 34 out of 690 Japanese firms registered in China have so far revealed the relocation plan following announcement of stimulus package by the Japanese government for the shift out of the mainland.

    It also said the JETRO officials recognised Bangladesh’s attractiveness as an investor-friendly destination.

    They, however, declined to name the Japanese firms willing to relocate from China.

    Earlier, the ambassador accompanied by high officials of the embassy called on the Japanese ambassador in Beijing Yutaka Yokoi to urge the Japanese side to prefer Bangladesh as a destination for relocation by their firms.

    Meanwhile, the Office of United States Trade Representative or USTR on May 13 last year released the list of 3,805 product categories that could be subject to tariffs of up to 25 per cent.

    Impacted by the US tariffs on Chinese-made goods, Japanese companies have started to leave China as the trade war launched by the Trump administration gets intensified.

    The Japanese firms that decide to relocate are mostly affected by the complete disruption to supply chain as well as the trade war that has hit hard the Japanese entities producing high-value products in China.

    Auto parts makers of Mazda Motor has decided to go to Mexico from the Jiangsu Province of China.

    Kasai Kogyo, supplier of Honda (interior door trim and roof part), is now planning to move from Wuhan to North America, Europe and Asia.

    Masudur Rahman, an official at the Bangladesh embassy in Beijing wrote the letter to an additional secretary of the ministry of foreign affairs.

    In the meantime, Sheikh F Fahim, president of the Federation of Bangladesh Chambers of Commerce and Industry or FBCCI, wrote a letter to the country representative of the Japan External Trade Organisation on May 12 calling for facilitating the relocation.

    Japan has adopted a national strategy to be implemented during the post Covid-19 period to relocate its investment both at home and outside China.

    The FBCCI also wrote to the Confederation of Asia Pacific Chambers of Commerce and Industry to encourage its member nations to relocate firms to Bangladesh.

    jasimharoon@yahoo.com

    https://thefinancialexpress.com.bd/...apanese-firms-keen-on-moving-to-bd-1590214572
     
    • Thanks Thanks x 9
  2. bluesky

    bluesky ELITE MEMBER

    Messages:
    9,184
    Joined:
    Jun 14, 2016
    Ratings:
    +6 / 10,528 / -8
    Country:
    Bangladesh
    Location:
    Japan
    Bold part: A letter has been sent by an official in the BD Embassy in Peking that claimed Japanese companies would move out from China to BD.

    I wonder how authentic is this information. Which Japanese companies have decided? By nature, Japanese are very thoughtful and careful. They will think hundred times before making a concrete decision on moving at all and whether to move to BD or some other countries.

    Moreover, is BD also ready with a proper infrastructure to receive investments? By nature we do lip service, talk sweet but do little. So, I very much doubt the possibility.

    So, my base idea is the Japanese companies have just inquired about the situation in or how investment-friendly is BD. It is not certainly a concrete proposal.
     
    Last edited: May 23, 2020
    • Thanks Thanks x 5
  3. manga

    manga FULL MEMBER

    Messages:
    948
    Joined:
    Jul 6, 2018
    Ratings:
    +0 / 937 / -9
    Country:
    India
    Location:
    India
    But wait, isn't there a bunch of people who say there is no moving out from china.

    Good luck to bangladesh.
     
    • Thanks Thanks x 4
  4. bluesky

    bluesky ELITE MEMBER

    Messages:
    9,184
    Joined:
    Jun 14, 2016
    Ratings:
    +6 / 10,528 / -8
    Country:
    Bangladesh
    Location:
    Japan
    You can rest assured Japanese executives will think million times before moving out of China and another million times before investing in BD where infrastructure remains weak. Just sending an invitation letter to come and eat dinner is not sufficient. You have to cook and clean the house before you can welcome guests.

    Japanese are aware of the situation in BD and Embassy/govt people cannot force the companies to relocate unless it is an emergency. Moreover, China situation will become normal once the Pandemic is under control. Bickering by Trump and Gong will not cause the demise of China.
     
    • Thanks Thanks x 2
  5. Bilal9

    Bilal9 ELITE MEMBER

    Messages:
    13,027
    Joined:
    Feb 4, 2014
    Ratings:
    +16 / 20,742 / -4
    Country:
    Bangladesh
    Location:
    United States
    Do elaborate on your hypothesis.
     
  6. Turingsage

    Turingsage BANNED

    Messages:
    1,364
    Joined:
    Sep 28, 2014
    Ratings:
    +0 / 2,080 / -19
    Country:
    India
    Location:
    United Kingdom
    All the best for Bangladesh. I hope this works out mutually beneficial for Japan and Bangladesh.
     
    • Thanks Thanks x 8
  7. Black_cats

    Black_cats SENIOR MEMBER

    Messages:
    5,651
    Joined:
    Dec 31, 2010
    Ratings:
    +0 / 8,198 / -5

    চীন ছাড়ছে সনি–টয়োটারা, ডাকছে বাংলাদেশ

    রাজীব আহমেদ, ঢাকা
    ২৩ মে ২০২০, ১০:০০
    আপডেট: ২৩ মে ২০২০, ১১:০১
    ৭৯
    [​IMG]
    জাপানের সনি করপোরেশনকে কে না চেনে। ক্যামেরা, টেলিভিশন, মুঠোফোনসহ বহু ধরনের ইলেকট্রনিক যন্ত্র ও যন্ত্রাংশ তৈরি করে সনি বিশ্বজুড়ে ঘরে ঘরে জায়গা করে নিয়েছে।

    সনি এখন তাদের ক্যামেরা, প্রজেক্টর ও ভিডিও গেম খেলার প্লে স্টেশন তৈরির কারখানা চীন থেকে সরিয়ে অন্য কোনো দেশে নিতে চায়। শুধু সনি নয়, চীন থেকে তল্পিতল্পা গোটাতে আগ্রহী জাপানের গাড়ি উৎপাদনকারী টয়োটার যন্ত্রাংশ তৈরির কোম্পানি টয়োটা বশোকু করপোরেশন, ইলেকট্রনিক জায়ান্ট শার্প ও প্যানাসনিক, ঘড়ি উৎপাদনকারী সিকো ও ক্যাসিওর মতো স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠানগুলো।


    জাপান চীন থেকে কারখানা সরিয়ে নিতে ২২০ কোটি মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ (প্রায় ১৯ হাজার কোটি টাকা) একটি তহবিল গঠন করেছে। যেসব জাপানি কোম্পানি চীন ছাড়বে, তাদের সহায়তা দেওয়া হবে এই তহবিল থেকে। ৩৪টি জাপানি কোম্পানি ইতিমধ্যে কারখানা সরিয়ে চীন থেকে অন্য দেশে নিতে আগ্রহ দেখিয়েছে বলে খবর এসেছে বাংলাদেশি ব্যবসায়ী সংগঠনের কাছে।

    ২০০৮ সালের পর থেকেই বৈশ্বিক ব্র্যান্ডগুলো চীনের পাশাপাশি অন্য কোনো দেশ থেকে পণ্য কেনার কৌশল নিয়ে এগোচ্ছিল। নানা কারণে উৎস বৈচিত্র্যকরণ খুব একটা হয়নি। কিন্তু মার্কিন-চীন বাণিজ্যযুদ্ধ যখন শুরু হলো, তখন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ২৫ শতাংশ শুল্কের মুখে পড়ে চীন ছাড়ার তোড়জোড় বাড়ে। এবার করোনাভাইরাস দুর্যোগে নিরাপত্তা ও কৌশলগত কারণেই চীনের ওপর নির্ভরতা কমানোর লক্ষ্য নিয়েছে জাপানিরা। আর যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান প্রশাসন তো অনেকটা চাপ প্রয়োগ করছে।

    জাপানিরা কেন চীনের ওপর নির্ভরতা কমাতে চায়, তার একটা ব্যাখ্যা পাওয়া যায় যুক্তরাষ্ট্রের পামির কনসাল্টিং এলএলসি নামের একটি পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের ভাইস প্রেসিডেন্ট মার্সি এ কুয়োর একটি লেখায়। ৫ মে ‘ডিপ্লোম্যাট’ ম্যাগাজিনে প্রকাশিত এ লেখায় তিনি উল্লেখ করেন, অনেক জাপানি কোম্পানিকে বিশ্বব্যাপী ও জাপানে জরুরি ও নিরাপত্তার দিক দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ পণ্য সরবরাহে পুরোপুরি চীনের ওপর নির্ভর করতে হয়। করোনা দেখিয়ে দিচ্ছে, শুধু একটি দেশের ওপর নির্ভরতা কী সংকট তৈরি করতে পারে।

    মার্সি এ কুয়ো বলেন, ‘জাপানকে সেসব পণ্যের উৎস দেশে বৈচিত্র্য আনতেই হবে, যা তার স্থিতিশীলতা ও নিরাপত্তার জন্য জরুরি। এটি চীনের জন্য উদ্বেগের। কারণ, জাপানের উদ্যোগ অন্য বিনিয়োগকারীদের বিচলিত করে তুলবে।’

    যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ কোম্পানিগুলো চীনের ওপর নির্ভরতা কমাতে মরিয়া। মার্কিন প্রশাসনও এ ক্ষেত্রে সক্রিয়। যেমন ১৬ মে তুরস্কের বার্তা সংস্থা আনাদলু এজেন্সির এক খবরে বলা হয়, ২৫ এপ্রিল যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদোর সঙ্গে টেলিফোনে আলাপ করেন। এরপরই ইন্দোনেশিয়া জাভায় চার হাজার হেক্টর জমি প্রস্তুত করা শুরু করেছে। চীনে থাকা যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ উৎপাদকদের বেশির ভাগ ইন্দোনেশিয়ায় কারখানা সরিয়ে নিতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

    কোনো কোনো বিশ্লেষক বলছেন, করোনাভাইরাস–পরবর্তীকালে চীন আর বিশ্বের কারখানা থাকছে না। বড়রা উৎপাদন সক্ষমতার একটা অংশ চীনে রেখে বাকিটা অন্য দেশে সরিয়ে নেবে। করোনার প্রাদুর্ভাব যখন চীনের মধ্যে ছিল, তখন (১ মার্চ) বিখ্যাত মার্কিন সাময়িকী ‘ফোর্বস’ এক প্রতিবেদনে বলেছিল, চীনের জন্য করোনাভাইরাস একটি ‘সোয়ান সং’। সোয়ান সং মানে হলো, একজন শিল্পীর পেশাজীবনের শেষ পরিবেশনা। ‘ফোর্বস’-এর প্রতিবেদকের মতে, চীন আর সস্তা থাকছে না। ট্রাম্প যদি দ্বিতীয় মেয়াদে নির্বাচিত হন, চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য চুক্তির উদ্যোগ যদি ব্যর্থ হয়, তাহলে কী হবে, সেটা ভাবতে বাধ্য হবে কোম্পানিগুলো।

    ওই প্রতিবেদনে বিনিয়োগ গবেষণা প্রতিষ্ঠান ব্রিটন উডস রিসার্চের প্রধান ভ্লাদিমির সিগনোরেল্লির একটি মন্তব্য ছাপা হয়। সেখানে তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি, চীনকে উৎপাদনকেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করার মডেলটি এ সপ্তাহেই মারা গেছে।’

    জাপানের নিক্কি এশিয়ান রিভিউ গত ১৬ এপ্রিল এক প্রতিবেদনে জানায়, জাপানের নেতৃত্বে চীন থেকে বিনিয়োগকারীদের যে ‘এক্সোডাস’ (সম্মিলিত প্রস্থান) শুরু হয়েছে, তাতে চীনের কমিউনিস্ট পার্টি উদ্বিগ্ন।

    বাংলাদেশের জন্য আগ্রহের বিষয় হলো এই কারখানাগুলোর গন্তব্য কোথায়। কিছু কিছু কি বাংলাদেশে আনা যাবে। বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম আশা করছেন, কারখানা স্থানান্তরের সুফল বাংলাদেশ পাবে। ১২ মে এফবিসিসিআই জেট্রোর ঢাকা কার্যালয়কে চিঠি দিয়েছে। এতে বলা হয়েছে, জাপান বিদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বৈচিত্র্য আনার যে কৌশল নিয়েছে, তা নিয়ে বাংলাদেশ খুবই আগ্রহী।

    এফবিসিসিআই চায়, জাপান কারখানা সরিয়ে বাংলাদেশে আনুক। এ ক্ষেত্রে সব ধরনের সহায়তা দিতে তারা আগ্রহী। সংগঠনটি একই ধরনের চিঠি দিয়েছে আঞ্চলিক বাণিজ্য সংগঠন কনফেডারেশন অব এশিয়া-প্যাসিফিক চেম্বারস অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিকে (সিএসিসিআই)।

    জানতে চাইলে শেখ ফাহিম প্রথম আলোকে বলেন, বাংলাদেশের উৎপাদন খরচ কম। বাংলাদেশে বিদ্যুৎ, পানির মতো পরিষেবার মূল্য কম। আর এসব বিষয় মিলিয়ে বাংলাদেশ অবশ্যই বিনিয়োগের একটি আকর্ষণীয় জায়গা। তিনি বলেন, ‘আমরা তাদের বলেছি, সর ধরনের সহযোগিতা করব। তাদের কী দরকার, সেটা আমাদের জানাক।’

    কিন্তু এখন পর্যন্ত যেসব জাপানি কোম্পানি চীন থেকে সম্মিলিত প্রস্থানে শামিল হয়েছে, তাদের বড় অংশ টিকিট কেটেছে হ্যানয়ে (ভিয়েতনামের রাজধানী)। জাপানের বিনিয়োগ ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান নমুরা হোল্ডিংসের এক জরিপ ও বিভিন্ন মাধ্যমে প্রকাশিত খবর বিশ্লেষণ করে ফক্স নিউজ জানায়, ২০১৮ থেকে ২০১৯ সালের তৃতীয় প্রান্তিক পর্যন্ত ৭৯টি কোম্পানি চীন থেকে কারখানা সরিয়ে নিয়েছে। এর মধ্যে ২৬টি ভিয়েতনামে, ১১টি তাইওয়ানে, ৮টি থাইল্যান্ডে, ৬টি মেক্সিকোতে ও ৩টি ভারতে গেছে। বাংলাদেশ পেয়েছে দুটি।

    আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবর থেকে করোনা-পরবর্তী সময়ে ১৬টি জাপানি কোম্পানির চীন ছাড়ার তথ্য পাওয়া যায়। যদিও এসব কারখানার একটির গন্তব্যও বাংলাদেশ নয়।

    গাড়ির যন্ত্রাংশ উৎপাদনকারী মাজদা মোটরস যেতে চায় মেক্সিকোতে। হোন্ডার সরবরাহকারী কাসাই কোগিও যেতে চায় উত্তর আমেরিকা অথবা ইউরোপে। প্রিন্টার ও ফটোকপিয়ার যন্ত্র উৎপাদনকারী রিকো করপোরেশন যেতে চায় থাইল্যান্ডে। শার্প যেতে চায় ভিয়েতনাম অথবা তাইওয়ানে। সিকো ও ক্যাসিও থাইল্যান্ডে যেতে চায়, অথবা জাপানেই ফিরতে চায়। টয়োটা তাদের যন্ত্রাংশ তৈরির কারখানা জাপান অথবা থাইল্যান্ডে নিতে আগ্রহী।

    বাংলাদেশ জাপানিদের জন্য একটি অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা করছে, যার ৫০০ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। এটি উন্নয়ন করছে জাপানের সুমিতমো করপোরেশন। এটি ২০২১ সালে কারখানা করার উপযোগী হবে বলে জানান বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, জাপানি অর্থনৈতিক অঞ্চলের জন্য আরও ৫০০ একর জমি অধিগ্রহণের কাজ দ্রুততর করা হচ্ছে। আর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরে ২ হাজার একর জমি তৈরি রাখা হচ্ছে।

    জাপানের উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা জাইকার সহায়তায় বিনিয়োগকারীদের জন্য এক দরজায় সেবা বা ওয়ান স্টপ সার্ভিসও চালু করেছে বেজা। যদিও তাতে বেশ কিছু সেবা যুক্ত করা এখনো বাকি।

    বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী মনে করেন, উল্লেখযোগ্যসংখ্যক জাপানি কোম্পানি বাংলাদেশে আসবে। এ জন্য করোনা-পরবর্তী বিদেশি বিনিয়োগ ও স্থানান্তরিত কারখানাকে বাংলাদেশে আনতে তাঁরা বেশ কিছু প্রস্তাব দিয়েছেন। এসব প্রস্তাবের মধ্যে বড় বিনিয়োগের জন্য বিশেষ সুবিধার কথা বলা হয়েছে। এগুলো পর্যালোচনার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

    এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম নীতির ধারাবাহিকতা ও ভিন্ন ধরনের দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে কাজ করার তাগিদ দিয়ে বলেন, ‘বড় বিনিয়োগের জন্য বিশেষ উদ্যোগ দরকার।’

    বাংলাদেশে এখন জাপানি কোম্পানির সংখ্যা ২৭০-এর মতো। বিগত কয়েক বছরে হোন্ডা মোটর করপোরেশন, জাপান টোব্যাকো ইন্টারন্যাশনাল, নিপ্পন স্টিল অ্যান্ড সুমিতমো মেটাল, মিতসুবিশি করপোরেশনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বিনিয়োগ করেছে। সমস্যা হলো, অনেক ক্ষেত্রেই জাপানি কোম্পানিগুলোর সমস্যা সমাধান হতে দেরি হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। আবার নীতির হঠাৎ পরিবর্তনও জাপানিদের বিপাকে ফেলে।

    জাপান-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (জেবিসিসিআই) মহাসচিব তারেক রাফি ভূঁইয়া প্রথম আলোকে বলেন, ‘কর্মরত জাপানি কোম্পানিগুলো যেসব সমস্যার মুখে রয়েছে, সেগুলো সমাধান করলে তারাই বাংলাদেশের ব্র্যান্ডিং করবে।’ তিনি আরও তিনটি পরামর্শ দেন। প্রথমত, জাপানি অর্থনৈতিক অঞ্চলের কাজ দ্রুত শেষ করে জমি বরাদ্দ দেওয়া। দ্বিতীয়ত, আঞ্চলিক জোট আসিয়ানের সঙ্গে যুক্ত হওয়া। তৃতীয়ত, ব্যবসার পরিবেশের উন্নতি।

    বিশ্বব্যাংকের সহজে ব্যবসাসূচক বা ইজি অব ডুয়িং বিজনেসে বাংলাদেশের অবস্থান ১৮৯টি দেশের মধ্যে ১৬৮তম। এ ক্ষেত্রে ভিয়েতনাম ৭০, থাইল্যান্ড ২১ ও ইন্দোনেশিয়া ৭৩তম।

    ঢাকায় বিশ্বব্যাংক গোষ্ঠীর সাবেক জ্যেষ্ঠ অর্থনীতিবিদ ও বেসরকারি সংস্থা পলিসি এক্সচেঞ্জের চেয়ারম্যান এম মাশরুর রিয়াজ বলেন, ‘হতে পারে ১৫ বছরে যে বিনিয়োগ পাওয়ার কথা, সেটা আমরা ৪ বছরে পাব। এ জন্য প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি ও কৌশল নিয়ে এগিয়ে যেতে পারি।’

    https://www.prothomalo.com/economy/article/1658290/চীনে-ছাড়ছে-সনি–টয়েটোরা-তাকিয়ে-আছে-বাংলাদেশ
     
  8. Nilgiri

    Nilgiri ELITE MEMBER

    Messages:
    24,269
    Joined:
    Aug 4, 2015
    Ratings:
    +82 / 44,930 / -10
    Country:
    India
    Location:
    Canada
    From article:

    They, however, declined to name the Japanese firms willing to relocate from China.

    =================


    @bluesky you are correct, if there is no names given, then it should be treated with caution for now.

    We have heard such things plenty of times already.
     
    • Thanks Thanks x 1
  9. Bilal9

    Bilal9 ELITE MEMBER

    Messages:
    13,027
    Joined:
    Feb 4, 2014
    Ratings:
    +16 / 20,742 / -4
    Country:
    Bangladesh
    Location:
    United States
    Since the article above is in Bengali - posting the inspiration of the article above, as published in the magazine 'The Diplomat'.

    Tokyo Prods Japanese Firms to Leave China

    Insights from David Arase.

    [​IMG]

    The Diplomat author Mercy Kuo regularly engages subject-matter experts, policy practitioners, and strategic thinkers across the globe for their diverse insights into the U.S. Asia policy. This conversation with Dr. David Arase, Resident Professor of International Politics at the Johns Hopkins University Nanjing University Center for Chinese and American Studies, explores Japan’s recent push to move critical production away from China.


    Explain the rationale behind Tokyo’s recent $2.2 billion stimulus package to help Japanese companies to move production out of China.

    There are two immediate reasons to reduce supply chain dependence on China. One is that many Japanese firms have “bet on China” and depend exclusively on Chinese factories and firms to provide critically important goods. COVID-19 highlighted the risk of making China a single point-of-failure in Japan’s global and regional supply chains. The lesson is that Japanese firms must expect disruption, diversify risk, and design redundancy into supply chains, especially for products critically important to Japan’s stability and security.

    The other reason is that actual reshoring of strategically indispensable Japanese production — not just “China +1” supply chain management — is a key aspect of Abe’s plan. This could kill two birds with one stone. It could enhance national security and it could also benefit Japan’s small- and medium-sized firms and boost provincial redevelopment plans in ways that help the LDP’s political prospects.

    What is the impact of COVID-19 on Prime Minister Shinzo Abe’s decision?

    The COVID-19 experience highlights China’s underlying fragility and it has weakened trust in the quality of China’s governance. And despite the official messaging coming out of China, the COVID-19 experience is not over. Experts believe that a new wave of infection in China may be in the cards. So COVID-19 recovery in China could drag on for another year at least.

    Even with counter-cyclical monetary and fiscal stimulus, a lagging recovery by the rest of the world means that Chinese problems of excessive public and private debt; depressed growth; reduced exports; defaults and bankruptcies; and possible societal discontent will create uncertainty and risk. At the same time, Sino-U.S. relations are deteriorating and Chinese assertiveness in Hong Kong, the Taiwan Strait, East China Sea, and South China Sea is rising—something that may not be unrelated to China’s need to manage a parlous domestic political situation.

    All this means that new developments emanating from China could further disrupt global and regional supply chains anchored in China. Although Abe had been toying with the idea of affiliating more closely with China’s Belt and Road Initiative (BRI) and nascent “community of common destiny” in Asia, the COVID-19 experience not only forced the cancellation of the Xi Jinping visit; it also left Abe with no choice but to step back from China’s embrace.

    China appears to be concerned that Japan’s move might negatively affect wider foreign investor sentiment. This concern reflects the fact that China needs access to rich Western economies to regain a stable growth and development path, which is critical to Xi Jinping’s legitimacy. Moreover, what China imports from Japan and other countries tends to be things it cannot make for itself. So, China cannot make a big show of punishing Japan for fear of sinking the recent Sino-Japanese rapprochement and drawing more international attention to Japan’s negative reassessment of China’s reliability as an economic partner.

    At the same time, one should not exaggerate the significance of Abe’s move. It does not signal a desire or intention to decouple from the Chinese economy. For the moment it is merely an adjustment to changed risk perceptions. China should do nothing at this point to make it into something worse for it.

    If major Japanese companies move their operations out of China, explain geopolitical implications for Japan-China relations.

    There are geopolitical and geo-economic implications but the extent to which they materialize will depend on whether Abe links the move out of China to his Free and Open Indo-Pacific (FOIP) strategy, which involves a modest but effective Japanese version of China’s BRI focusing on the provision of quality infrastructure and maritime security.

    Japan’s FOIP idea is to work with other Quad powers [Australia, India, and the United States] and Indo-Pacific developing countries to sustain regional economic development and integration under the familiar norms of the rules-based order. If Japan decides as a matter of public policy to incentivize the relocation of Japanese supply chains from China to FOIP partner countries, it could reinforce the FOIP effort. But any overt linkage could necessitate Chinese retaliation and set off a downward spiral in Sino-Japanese relations. As ever, a deft touch is required to manage this fragile and conflicted relationship successfully.

    Assess potential foreign and trade policy ramifications for U.S.-Japan leadership cooperation amid U.S.-China decoupling.

    The COVID-19 experience is teaching both the U.S. and Japan similar lessons. China has excelled in attracting and servicing both U.S. and Japanese global value chains first in low value-added assembly operations and now in the production of higher value-added intermediate goods and services. This has made China an indispensable value chain nexus. But COVID-19 has demonstrated how this indispensable Chinese nexus is also a single point-of-failure that, out of the blue, can halt the supply of goods on which the U.S. and Japan are critically dependent. Both nations are now convinced that remedies must be urgently found and implemented.

    The U.S. and Japan also strategically partner to advance their respective FOIP initiatives. As indicated above, there is a potential link between diversifying supply chain risk out of China and bringing infrastructure development, investment, and trade to Indo-Pacific developing country partners under the rules-based order. There is obvious scope for U.S.-Japan cooperation if leaders decide to coordinate their supply chain adjustment efforts with Indo-Pacific policy agendas. For example, India is regarded by both the U.S. and Japan as a key strategic and economic Indo-Pacific partner that could benefit from better economic connectivity with the advanced west.

    So, the opportunity for win-win bilateral and regional cooperation growing out of the COVID-19 crisis exists. It behooves both countries to think long-term about FOIP strategy, and to task their aid, trade, and finance ministries to consult — with each other and with European allies, the ADB [Asian Development Bank], and the World Bank — to direct aid, investment, and trade relations toward like-minded Indo-Pacific developing countries to help them pick up supply chain roles migrating out of China and reinforce Free and Open Indo-Pacific strategy.
     
    • Thanks Thanks x 1
  10. Yaseen1

    Yaseen1 ELITE MEMBER

    Messages:
    9,041
    Joined:
    Apr 1, 2014
    Ratings:
    +3 / 8,155 / -8
    Country:
    Pakistan
    Location:
    Pakistan
    bangladesh has very good relationship with china so it is good and no threat for china,china can sell weapons to bangladesh for strengthening their defense if they earn more money through these companies
     
  11. Al-Ansar

    Al-Ansar FULL MEMBER

    Messages:
    666
    Joined:
    Jul 20, 2018
    Ratings:
    +0 / 1,244 / -2
    Country:
    Bangladesh
    Location:
    Bangladesh
    There is promise but let us not go gaga over this just yet.

    We need to fix our shitty road infrastructure to ensure goods get transported very fast in order to attract real investments.

    Thankfully the electricity and gas situations are being sorted.
     
    • Thanks Thanks x 2
  12. DalalErMaNodi

    DalalErMaNodi FULL MEMBER

    Messages:
    1,438
    Joined:
    May 12, 2020
    Ratings:
    +2 / 1,878 / -0
    Country:
    Bangladesh
    Location:
    Kuwait
    So we can't gugu gaga yet?
    [​IMG]
     
    Last edited: May 24, 2020
    • Thanks Thanks x 1
  13. Al-Ansar

    Al-Ansar FULL MEMBER

    Messages:
    666
    Joined:
    Jul 20, 2018
    Ratings:
    +0 / 1,244 / -2
    Country:
    Bangladesh
    Location:
    Bangladesh
    Infrastructure wise that's the stage we are currently in.

    Build two-three more Padma bridges, expand all major highways to at least four lanes, expand the rail freight network and decentralise government functions and then we can seriously compete for investments and take export figures to 100s of billions.
     
    • Thanks Thanks x 1
  14. Bagheera

    Bagheera SENIOR MEMBER

    Messages:
    4,093
    Joined:
    Jan 16, 2013
    Ratings:
    +0 / 1,235 / -38
    Country:
    India
    Location:
    India
  15. Homo Sapiens

    Homo Sapiens SENIOR MEMBER

    Messages:
    7,995
    Joined:
    Feb 3, 2015
    Ratings:
    +3 / 18,521 / -6
    Country:
    Bangladesh
    Location:
    Bangladesh
    Please use full page screen capture to post Bengali news article. This type of direct copy-pasting do not show the Bengali script but obscure code language to the Bangladeshi readers who use VPN/Tor browser to access this site.